দৈনন্দিন জীবনে ফরজ ও ওয়াজিব আমল সম্পর্কে জানুন

প্রিয় আর্টিকেল পাঠক, আমরা আজকের আর্টিকেলে দৈনন্দিন জীবনে ফরজ ও ওয়াজিব সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব। আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা আমাদের জীবনের কিছু ফরজ ও ওয়াজিব রয়েছে সে সম্পর্কে জানেনা। তাদের জন্য আজকের আর্টিকেল খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আসুন তাহলে জেনে নেয়া যাক, দৈনন্দিন জীবনে ফরজ ও ওয়াজিব সম্পর্কে।

বন্ধুরা, আপনারা নিশ্চয়ই দৈনন্দিন জীবনে ফরজ ও ওয়াজিব সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। আজকে পোস্টে ভোরের আলোকে পক্ষ থেকে গোসলের ফরজ, ওযুর ফরজ, নামাজের ১৩ ফরজ, নামাজের ১৪টি ওয়াজিব সম্পর্কে আলোচনা করবো।

দৈনন্দিন জীবনে ফরজ ও ওয়াজিব আমল "উপস্থাপনা"

আল্লাহ তা'আলা সর্বশক্তিমান। তিনি চিরঞ্জীব ও চিরস্থায়ী। তাকে তন্দ্রাও স্পর্শ করতে পারেনা। আকাশ সমূহ এবং পৃথিবীতে যা কিছু আছে সমস্তই তার। এমন কে আছে যে, তার নিকট সুপারিশ করতে পারে তাদের সম্মুখে বর্তমান বা পশ্চাতে যা কিছু আছে তা সংস্কৃতি তিনি অবগত আছেন তার জ্ঞানের কোন বিষয় তার ইচ্ছা ছাড়া কেউ আয়ত্ত করতে পারে না। তার অবস্থান রাখার সমূহ পৃথিবীর বিস্তৃত হয়ে আছে। এই উভয়ের আকাশ ও পৃথিবী সংরক্ষণ কার্য তার পক্ষে কিঞ্চিত কষ্টকর হয় না। তিনি সর্বোচ্চ ও সর্বশ্রেষ্ঠ। মহান আল্লাহ যিনি আমাদের সৃষ্টি করেছেন তার ইবাদত করার জন্য। আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা আল্লাহর নেয়ামত ও দৈনন্দিন জীবনের ফরজ ও ওয়াজিব আমল সম্পর্কে সম্পর্কে জানেনা। আজকের পোস্ট তাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আজকের পোস্টে দৈনন্দিন জীবনে ফরজ ও ওয়াজিব আমল সম্পর্কে বিস্তারিত জানাবো।

গোসলের ফরজ ৩টি

১. কুলি করা 

২.নাকে পানি দেওয়া

৩.সমস্ত শরীর ভালো করে ধৌত ধরা

অজুর ফরজ ৪টি

১.সমস্ত মুখ ধোয়া

২.দুই হাতের কনুইসহ ধোয়া

৩.মাথা মাসেহ করা

৪.দুই পায়ের টাকনুসহ ধোঁয়া

নামাজের ১৩ ফরজ

নামাজের বাহিরে ৭ ফরজ

১.শরীর পাক

২.কাপড় পাক

৩.নামাজের জায়গা পাক রাখা

৪.ছতর ঢাকা 

৫.কেবলা মুখি হওয়া 

৬.ওয়াক্ত মত নামাজ পড়া

৭.নামাজের নিয়ত করা

নামাজের ভেতরে ৬ ফরজ

১.তাকবীরে তাহরীমা বলা

২.খাড়া হয়ে নামাজ পড়া

৩.কেরাত পড়া

৪.রুকু করা

৫.দুই সেজদা করা

৬.আখেরী বৈঠক করা

নামাজের ১৪টি ওয়াজিব 

মাশাআল্লাহঃ নামাজে ভুলবশতঃ কোন ওয়াজিব ছুটে গেলে নামাজ শেষে সেজদা করলে ইনশাল্লাহ নামাজ হয়ে যাবে। তবে ইচ্ছে ওয়াজিব তরক করিলে নামাজ পুনরায় পড়তে হবে।

১.আলহামদু শরীফ পুরা পড়া

২.আলহামদু সঙ্গে সূরা মিলানো

৩.রুকুতে দেরি করা

৪.রুকু হইতে সোজা হয়ে খাড়া হয়ে দেরি করা

৫.দুই সিজদার মাঝখানে সোজা হয়ে দেরী করা

৬.দরমিয়ানি বৈঠক

৭.দুই বৈঠকে আত্তাহিয়াতু পড়া

৮.ইমামের জন্য কেরাত আস্তে ও জোরে পড়া

৯.বিতরের নামাযে দোয়া কুনুত পড়া

১০.দুই ঈদে নামাজে ৬ তাকবীর বলা

১১.প্রত্যেক ফরজ নামাযের প্রথমে দুই রাকাতে কেরাত জন্য নির্ধারিত করা

১২.প্রত্যেক ফরয গুলির তাকবীর ঠিক রাখা

১৩.প্রত্যেক ওয়াজিব গুলির তাকবীর ঠিক রাখা

১৪.আসসালামু আলাইকুম বলিয়া নামাজ শেষ করা

সর্বশেষ কথা

প্রিয় পাঠক, নিশ্চয়ই আপনাদের বুঝাতে পেরেছি দৈনন্দিন জীবনে ফরয-ওয়াজিব অমলগুলো সম্পর্কে। আল্লাহ ব্যতীত কোন উপাস্য নেই। তিনি রাজা, তিনি পবিত্র, তিনি শাস্তিদাতা, নিরাপত্তা দাতা, রক্ষক,পরাক্রান্ত, প্রবল, মহামান্বিত । মহান আল্লাহতালা আকাশমণ্ডলী ও পৃথিবীতে যা কিছু আছে সমস্ত তার পবিত্রতা ঘোষণা করে। তিনি পরাক্রমশালী ও প্রজ্ঞাময়। তার দেয়া নেয়ামতের একটি ফরজ ও ওয়াজিব আমল। তাই আমাদের দৈনন্দিন জীবনে ফরজ ও ওয়াজিব আমল সম্পর্কে অবশ্যই জানা উচিত। এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থেকে আর্টিকেল পড়ার জন্য আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ। এরকম আরো পোস্ট পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন।

Next Post Previous Post