অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার ১২টি উপকারিতা সম্পর্কে জেনে নিন

প্রিয় বন্ধুরা, আজকের পোস্টে অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার উপকারিতা আলোচনা করবো। বর্তমানে অ্যাভোক্যাডো  নামটা বেশ পরিচিত। এর বিজ্ঞানসম্মত নাম হল পাশ্বিয়া আমেরিকানা এই ফল নাশপাতির মতো দেখতে গোলাকার সবুজ বা কালো রংয়ের দেখা যায়। পুষ্টিগুণে ভরপুর এই ফলটির ভেতরের অংশ মাখনের মতো নরম,মসৃণ ও সুগন্ধি বিশিষ্ট হয়ে থাকে। তাহলে দেরি না করে জেনে নেয়া যাক,অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে।



বন্ধুরা, নিশ্চয়ই আপনারা অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে জানতে চেয়েছেন। আজকের পোস্টে অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে আলোচনা করবো।

অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার ১২র্টি উপকারিতা "উপস্থাপনা"

অ্যাভোক্যাডো ফলের ভেতরে একটি মাত্র বীজ থাকে। এর বীজ থেকে চারা উৎপাদন করা যায়।অ্যাভোক্যাডো ফলটি মিষ্টি না হলেও পুষ্টিগুণে অতুলনীয় এই ফলটি ভর্তা, সালাদ, ও জুস হিসেবে খাওয়া যায়। এই ফলের সঙ্গে মধু মিশিয়ে জুস হিসেবে খাওয়া যায়। বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন ও মিনারেল এর উৎস এই ফল। আমাদের শরীরের এনার্জি এবং পুষ্টির ঘাটতি পূরণ করে থাকে এই ফল। অন্য যে কোনো ফলের তুলনায় এই ফলের পুষ্টিগুণ অনেক বেশি থাকে। তাই এই ফলকে সুপারফুড বলা হয়।আসুন তাহলে জেনে নেয়া যাক, অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে । হার্ট সুস্থ থাকে নিয়মিত অ্যাভোকাডো ফল খেলে শরীরের খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে থাকে এবং ভালো কোলেস্টেরলের মাত্রা বৃদ্ধি পায়। ভালো কোলেস্টেরল আমাদের হার্টকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে।

অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার ১২র্টি উপকারিতা

ত্বক ও চুলের যত্নে | অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার  উপকারিতা

অ্যাভোক্যাডোতে রয়েছে ভিটামিন সি' ও ভিটামিন ই' যা আমাদের ত্বক ও চুলের যত্নে খুবই উপকারী। ভিটামিন-সি আমাদের ত্বককে উজ্জ্বল করে এবং ত্বকের তেলতেলে ভাব দূর করে। ভিটামিন ই' সূর্যের আলো থেকে আমাদেরকে স্কিনকে রক্ষা করে। চুল পড়া রোধ করতে ও চুল ঘন করতে ভিটামিন-ই অনেক কার্যকরী। এছাড়া অ্যাভোক্যাডোর পেস্ট ব্যবহার করলে স্ক্রিন সফট হয় এবং চুল স্বাস্থ্যোজ্জ্বল হয়।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা | অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার  উপকারিতা

অ্যাভোক্যাডো অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট সম্পন্ন ফল। এই ফলে বেটা সাইটোস্টেরেল রয়েছে। যা আমাদের শরীরকে বিভিন্ন ভাইরাস ও রোগের হাত থেকে রক্ষা করে। ফলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।

ওজন হ্রাস | অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার  উপকারিতা

অ্যাভোক্যাডো মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার থাকে। ফাইবার ওজন হ্রাস করতে সাহায্য করে এবং অ্যাভোকাডোতে উচ্চ ফাইবার কম পরিমাণে কার্বোহাইড্রেট থাকে যা ওজন হ্রাসের প্রক্রিয়াকে সহজ করে তোলে।

দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে | অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার  উপকারিতা

অ্যাভোক্যাডোতে রয়েছে কেটে ক্যারোটিনয়েড লুটইন এবং জেক্সানথিন, যা ম্যাকুলার অবক্ষয় প্রতিরোধে সহায়তা করে। অ্যাভোক্যাডো তাই দৃষ্টিশক্তি ভালো রাখতে অত্যন্ত উপকারী।

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে | অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার  উপকারিতা

অ্যাভোক্যাডোতে উচ্চমাত্রায় ফাইবার থাকে। যা আমাদের শরীরের পরিপাক ক্রিয়াকে অনেক সহজ করে ফলে কোষ্ঠকাঠিন্য দূর হয়।

হার্ট অ্যাটাক দূর করতে | অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার  উপকারিতা

প্রতি 100 গ্রাম অ্যাভোক্যাডোতে ১৪% পটাশিয়াম থাকে। উচ্চমাত্রায় পটাশিয়াম থাকায় উচ্চ রক্তচাপ হ্রাস করে। যা হার্ট অ্যাটাক দূর করতে সাহায্য করে।

 ডায়রিয়া রোগে | অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার  উপকারিতা

যারা ডায়রিয়া রোগে ভুগছেন তারা হালকা লবন দিয়ে এই ফল খেতে পারেন। এতে সোডিয়ামের অভাব পূরণ হবে কারণ অ্যাভোক্যাডোতে থাকা পটাশিয়াম ডায়রিয়ার কারণে হওয়া ইলেক্ট্রোলাইট এর ঘাটতি পূরণ করতে সাহায্য করে।

ক্যান্সার প্রতিরোধ করে | অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার  উপকারিতা

অ্যাভোক্যাডো নির্যাস পোস্টেড ক্যান্সারের কোষগুলিকে বাধা প্রদান করে। এছাড়া এতে থাকা ফাইটোকেমিক্যাল ও মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাট ক্যান্সার কোষ ধ্বংস করতে সাহায্য করে।

গর্ভাবস্থায় | অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার  উপকারিতা

প্রতি 100 গ্রাম অ্যাভোক্যাডোতে 20% ফোলেট থাকে।ফোলেট গর্ভাবস্থায় শিশুর জন্মগত এ্রুটি রোধ করতে এবং মস্তিষ্ক গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাই গর্ভবতীদের জন্য বেশ উপকারী একটি ফল অ্যাভোকাডো।

দাঁত ও হাড়ের যত্নে | অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার  উপকারিতা

অ্যাভোক্যাডোতে প্রচুর পরিমাণে প্রায় 20 ধরনের ভিটামিন পাওয়া যায়। এছাড়া এই ফলে বিভিন্ন খনিজ উপাদান থাকে। এসকল ভিটামিন ও খনিজ দাঁত ও হাড়ের ক্ষয় রোধ করে। দাঁত ও হাড়েকে শক্ত ও মজবুত করতে সাহায্য করে।

অস্টিও আর্থ্রাইটিস নিরাময়ে | অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার  উপকারিতা

অ্যাভোক্যাডোতে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদান, ক্যারোটিনয়েড অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড ও পলিহাইড্রোক্সিলডটেড অ্যালকোহল আছে যা রিউম্যাটয়তে ও অস্টিও আর্থ্রাইটিস নিরাময়ে সাহায্য করে।

সর্বশেষ কথা

বন্ধুরা, নিশ্চয়ই আপনাদের বুঝাতে পেরেছি অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে।অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়ার এত পুষ্টিগুণ উপকারিতা রয়েছে, তাই আমাদের অ্যাভোক্যাডো ফল খাওয়া উচিত। এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থেকে শেষ পর্যন্ত পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ। এরকম আরো পোস্ট পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন।

Next Post Previous Post