জিপি থেকে অন্য অপারেটর ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম সমূহ

জিপি থেকে অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম সমূহ - বর্তমান সময়ে রিচার্জ করার জন্য ফেক্সিলোডের দোকানে গিয়ে রিসার্চ করা সবসময় সম্ভব হয় না। আমরা যখন রিচার্জ করতে চাই অনেক সময় দেখা যায় আমাদের মোবাইলে বিকাশে বা রকেট বা নগদ একাউন্টে কোন টাকা থাকে না। আপনি যদি এই সময়ে কিভাবে ব্যালেন্স রিচার্জ করবেন এটা নিয়ে অনেক দুশ্চিন্তায় পড়ে যান। এক্ষেত্রে আপনার একটি ব্যালেন্স ট্রান্সফার পরিষেবা আপনার রিচার্জ এর সমাধান করতে পারে। বর্তমানে মোবাইল অপারেটর কোম্পানি গ্রামীণফোনের গ্রাহকদের জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার সার্ভিস চালু করেছেন। আমরা আজকের পোস্টটি আপনাদের সুবিধার্থে জিপি থেকে অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম নিয়ে সাজিয়েছি।

জিপি থেকে অন্য অপারেটর ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম সমূহ

বন্ধুরা, জিপি থেকে অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফার সিস্টেমের বিষয় না জানার কারণে বেশিরভাগ লোকেরা এই পরিষেবাটি ব্যবহার সম্পর্কে জ্ঞান নেই। তাই আপনি যদি জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার নিয়ম জানতে চান। তাহলে আমাদের এই পোস্টটি  শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

জিপি থেকে অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফার

বাংলাদেশের সবচাইতে বড় কোম্পানি জিপি সিম কোম্পানি। জিপি সিম বাংলাদেশের সকল নাগরিক ব্যবহার করে থাকে। জিপি থেকে অন্য অ্যাপারে ব্যালান্স ট্রান্সফার মোবাইল অপারেটর কোম্পানির গ্রামীন থেকে অন্য জিপি সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার সেবা দিয়ে থাকে। আর তাই এই সিস্টেমটি জিপি ব্যালান্স ট্রান্সফার কে সিস্টেম বলা হয়। যাইহোক, তবে জিপি কোম্পানি এই ব্যালেন্স ট্রান্সফার শুধুমাত্র জিপি ব্যালেন্স পোস্টপেইড থেকে প্রিপেইড পাঠানো সম্ভব।
জিপি থেকে অন্য অপারেটর ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম সমূহ
আপনি চাইলে জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার পরিসেবা নিবন্ধিত গ্রাহকের জিপি থেকে অন্য অপারেটরের ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনার কিছু প্রতিবন্ধকতা রয়েছে। প্রতিবার একজন ব্যক্তির জিপিতে ৫০ টাকা থেকে ১০০ টাকা টান্সফার করতে পারবেন। এই ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য মাসিক সীমা হল ১০০০ টাকা। একজন গ্রাহক মাসে সর্বোচ্চ ১০ বার এই পরিবারে নিতে পারবেন। কিভাবে জিপি থেকে অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে হয় তা জানতে আমাদের এই পোস্টটি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়লে আপনি সবকিছু বিস্তারিত জানতে পারবেন।

গ্রামীনফোনের ব্যালেন্স ট্রান্সফারের পদ্ধতি

আপনি কি গ্রামীণফোনের ব্যালেন্স ট্রান্সফারের পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন। কিভাবে গ্রামীণফোনের ব্যালেন্স ট্রান্সফার পদ্ধতি অনুসরণ করবেন তা জানতে শেষ পর্যন্ত আমাদের সঙ্গে থাকুন।

1. জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার সার্ভিস রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করতে হবে।
2. একটি নির্দিষ্ট বিন্যাসে এসএমএস পাওয়া।
3. ব্যালেন্স ট্রান্সফার রিকুয়েস্ট শেষ করা হচ্ছে।

আপনি যদি জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার সার্ভিস রেজিস্ট্রেশন করতে চান তাহলে আপনি অনায়াসে করতে পারবেন। এসএমএসের জন্য আপনার কোন অতিরিক্ত খরচ হবে না। আপনি যদি চান আপনার ব্যালেন্স ট্রান্সফার সার্ভিস তিনটি ভিন্ন পদ্ধতি অনুসরণ করে করতে পারবেন।
  • প্রথমে ইউএসডি কোড দ্বারা জিপি ব্যালেন্স হস্তান্তর।
  • প্রথমত আপনাকে ডায়াল করতে হবে *121*500# ।
  • এরপর দুই নম্বর সংখ্যাটি চাপ দিন।
  • প্রাপকের ফোন নাম্বারটি এখানে লিখুন।
  • এরপর আপনি যে পরিমাণ টাকা পাঠাতে চান সেই পরিমাণ টাকা দিয়ে টাইপ করুন।
  • প্রতিবার আপনি টাকা পাঠাতে পারবেন 10 থেকে 100 টাকা পর্যন্ত।
  • আপনার পিন নাম্বারটি ব্যবহার করুন।
  • ব্যালেন্স ট্রান্সফার পরিমাণ USSD কোড।
  • অন্যদের জন্য জিপি ১০ থেকে ১০০ স্টার *121*500# ।
  • মেসেজের মাধ্যমে জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার।
  • আপনার এসএমএসের বিকল্পে যান।
  • এরপর নতুন বার্তা নির্বাচন করুন।
  • এরপর প্রদত্ত বিন্যাস অনুসরণ করে আপনার একটি বার্তা টাইপ করুন।

অ্যাপের মাধ্যমে জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার

বন্ধুরা আপনি যদি মাই জিপি MY GP অ্যাপে থেকে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে চান। তাহলে আপনার মাই জিপি MY GP অ্যাপস প্রথমে ওপেন করুন। আপনি প্রাথমিকভাবে ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য একটি বিকল্প পাবেন। সেখানে গিয়ে আপনার মোবাইল নাম্বার টাইপ করে। তারপর পরিমাণ ও এবং পিন নাম্বার নিশ্চিত করতে হবে। তারপরে আপনার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে যাবে।

কিভাবে জিপি থেকে অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করবেন ?

আপনি যদি জিপি থেকে অন্য কোন অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে চান। তাহলে আপনি খুব সহজেই  জিপি অপারেটর থেকে করতে পারবেন। অনেক সময় অনেক বিপদে পড়তে হয় আমাদের বিভিন্ন অ্যাকাউন্টে যত সময় টাকা না থাকার কারণে। সেই দিক থেকে জিপি অপারেটর অন্য অপারেটরের জন্য দুর্দান্ত সমাধান নিয়ে এসেছে।

বিভিন্ন মোবাইলে পরিষেবা রয়েছে কিন্তু জিপি থেকে অন্য অপারেটরের ব্যালেন্স ট্রান্সফার করা কি সম্ভব? উদাহরণস্বরূপঃ রবি ব্যালেন্স ট্রান্সফার করা কি সম্ভব? এই মুহূর্তে বৈশিষ্ট্য হলো লাইভ কিন্তু চিন্তা করেন আপনি এখন আপনার রবি সিম থেকে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবেন এর জন্য কিভাবে রবি থেকে জিপিতে হস্তান্তর করতে হয় তা সম্পর্কে জানতে হবে।

ধাপঃ

  • রবিতে ব্যালেন্স ট্রান্সফার সার্ভিসে জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। তারপর আপনার নতুন বার্তা বিকল্পে শুধু পরিমাণটি টাইপ করুন। one - to- one 2023 xxxxxxx5 তারপর সেখানে 01881xxxxx1 যে ফোনটি রিসিভ করবে অর্থাৎ রিসিভার ফোনটি বসান।
  • প্রথমে স্থানচরের জন্য পরে স্বয়ংক্রিয় ভাবে নিবন্ধন সম্পন্ন হবে।
  • প্রথমে স্থানান্তরের পরে আপনি একটি পিন কোড পাবেন। যা ভবিষ্যতে পিন কোড পরিবর্তনের জন্য আপনাকে সেই পিন কোড টি ব্যবহার করতে হবে।
  • আপনি যদি পিন কোড নিশ্চিত করতে চান। তাহলে এসএমএস এর কিছু টাইপ বন্ধ করুন এবং 1210 পাঠান।
  • ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার পর জন্য iv-r ব্যবহার করতে 1210 ডায়াল করুন।
  • এরপর আপনি যদি মেনু থেকে ব্যালেন্স স্তানান্তর করতে স্টার1406 ওয়ান ডায়াল করতে পারবেন।

বিশেষ শর্তাবলীঃ 

  • অনুরোধের জন্য প্রেরকের একাউন্ট শুধুমাত্র 0.60 টাকা থাকতে হয়।
  • ব্যালেন্সের জন্য অনুরোধ করতে ডায়াল করুন*140*6*2# । 
  • এর কাছ থেকে টাকা নেওয়ার জন্য ২  ভ্যাট SD এবং DC ব্যতীত।
  • রিসিভার থেকেও টাকা নেওয়া হবে 28  ভ্যাট SD এবং DC ব্যতীত। সাহায্য বা আরও বিশদ পেতে 123 নম্বরে কল করুন, হেল্প লিখে এসএমএস পাঠান এবং ১২১০ নাম্বারে পাঠান।

জিপি থেকে অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফারের পিন কোড?

জিপি থেকে অন্য অপারেটরের ব্যালেন্স ট্রান্সফার করা ও যদি জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিন ভুলে গিয়ে থাকেন তাহলে জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার পিন কোড সমাধানটি পেতে পিন নম্বর পরিবর্তন করতে চান। তাদের জন্য রয়েছে কিছু তথ্য। আপনি যদি না বা পরিবর্তন করতে চান তাহলে আমাদের পোস্টটি ফলো করুন।
ধাপঃ 
  • প্রথমে ডায়াল করুন*121*1500#।
  • তারপর আপনার কিবোর্ড টাইপ অপশন থেকে 3 ইনপুট করুন।
  • এরপর আপনার ওল্ড বা পুরানো পিন নাম্বারটি এখানে টাইপ করুন।
  • অতঃপর আপনার পিন নাম্বার নিশ্চিত করুন।
  • প্যালেস্ট ট্রান্সফার পিন পুনরুদ্ধার করুন।
  • এরপর আপনার এসএমএস এর বিকল্পে যেতে হবে।
  •  আপনার মেসেজ অপশন থেকে নতুন বার্তা নির্বাচন করুন।
  • তৎক্ষণিক নিম্নলিখিত বিন্যাসে বার্তা টাইপ করুন।
  • CPIN পুরানো পিন নাম্বার, স্পেস, নতুন পিন নাম্বার, স্পেস এবং আপনার নতুন পিন নাম্বার নিশ্চিত করুন। যেমনঃ(CPIN 5000 4002 1000)
আপনি যদি আপনার পিন কোড পুনরোদ্ধার করতে চান ও জিপি থেকে অন্য অপারেটরের ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে আপনি জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার জন্য জিপি কাস্টমার কেয়ার সার্ভিস এর সাথে যোগাযোগ করতে পারেন। মাই জিপি ওয়েবসাইটে লাইভ চ্যাট এর বিকল্প ব্যবহার করতে পারেন।

শর্তাবলীঃ

  • আপনি এই সেবাটি পেতে কমপক্ষে ৬ মাস গ্রামীন নেটওয়ার্কে ব্যবহার করতে হবে তাছাড়াও গ্রাহকের একবার ৩০০ টাকা বা এর বেশি রিচার্জ করবেন তারাও এই পরিষেবার জন্য যোগ্য হবেন।
  • গ্রাহক 50 থেকে 100 টাকা ট্রান্সফার করতে পারবেন।
  • এই ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য মাসিক সীমা হলো 1000 টাকা
  • এক মাসে সর্বোচ্চ ১০ বার পরিষদে নিতে পারবেন।
  • শুধুমাত্র প্রিপেইড গ্রাহক জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জন্য যোগ্য হবেন যেকোনো প্রিপেইড থেকে পোস্টপেইড নাম্বারে পাঠাতে পারবেন।
  • এর জন্য আপনার থেকে অতিরিক্ত টাকা কাটবে না।
  • জিপি থেকে অন্য অপারেটরের ব্যালেন্স ট্রান্সফার USSD কোড।
  • আপনি আপনার মেনু থেকে SSD কোড ডায়াল করে ব্যালেন্স ট্রান্সফার পরিষেবার জন্য সদস্যতা নিতে পারেন। তার জন্য আপনাকে *121*1500# ডায়াল করতে হবে। এরপর অপশনে 1 চাপ দিতে হবে তাহলে আপনার কাজ শেষ।

ব্যালেন্স ট্রান্সফার SMS পদ্ধতি?

পাঠক বন্ধুরা, আপনি যদি জিপি থেকে অন্য অপারেটর ব্যালান্স ট্রান্সফার করার জন্য ডায়াল করা পছন্দ না করে থাকেন। তাহলে আপনার জন্য আমাদের এই সমাধান। এখানে আপনার জন্য একটি বিকল্প রাস্তা রয়েছে। আপনি পরিষেবার জন্য নিবন্ধন করতে একটি এসএমএস পাঠাতে পারেন। এর জন্য আপনার বার্তা বিকল্পে যান এবং নতুন বার্তা নির্বাচন করুন। REGI লিখুন তারপরে 1000 নাম্বারে এসএমএস পাঠাতে হবে। আপনি অবিলম্বেই একটি এসএমএস পিন পাবেন। এই সিম থেকে অন্য সিমে ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার জন্য শুধু আপনার পিন রিজার্ভ করুন।

অ্যাপের মাধ্যমে জিপি থেকে অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফার 

আপনার হাতে যদি একটা অ্যান্ড্রয়েড ফোন থাকে এন্ড্রয়েড ফোনে যদি মাই জিপি অ্যাপস থাকে। তাহলে আপনি জিপি থেকে অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফারের সিম নিবন্ধনের জন্য সবচেয়ে সহজ এবং আধুনিক ব্যবস্থার অ্যাপস এর মাধ্যমে আপনি জিপি ব্যালেন্স ট্রান্সফার পরিষেবা এর জন্য নিবন্ধন করুন। তাহলে আপনি ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবেন।

সর্বশেষ কথাঃ জিপি থেকে অন্য অপারেটর ব্যালেন্স ট্রান্সফার করার নিয়ম সমূহ

আজকের পোস্টটি যারা পড়েছেন তারা নিশ্চয়ই জিপি থেকে অন্য অপারেটরে ব্যালেন্স ট্রান্সফারের সেবাটি সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। তাহলে আজকের পর থেকে আপনারা যদি কখনো ব্যালেন্স ট্রান্সফারের জনিত সমস্যায় পড়েন। আর কোন নগদ, বিকাশ, রকেট একাউন্টে যদি টাকা না থাকে। তখন আমাদের এই পোস্টটি পড়ে খুব সহজে আপনি ব্যালেন্স ট্রান্সফার করতে পারবেন।

আজকের পোস্টটি পড়ে আপনারা যদি উপকৃত হয়ে থাকেন। তাহলে আমরা খুবই আনন্দিত। এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থেকে শেষ পর্যন্ত পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ। এরকম আরো পোস্টটি পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন।

Next Post Previous Post