হাঁসের ডিমের কোপ্তাকারি রেসিপি তৈরি করুন

প্রিয় বন্ধুরা, আজকের পোস্টে হাঁসের ডিমের কোপ্তাকারি রেসিপি তৈরি করার সহজ পদ্ধতি আলোচনা করব। আপনাদের মধ্যে অনেকে আছে যারা নতুন নতুন রেসিপি জানতে আগ্রহী তাদের জন্য আজকের এই পোস্ট। পুরো রেসিপি জানতে ভোরের আলো আইটির সঙ্গে থাকুন।

হাঁসের ডিমের কোপ্তাকারি রেসিপি তৈরি করুন

বন্ধুরা, আজকের পোস্টে মজার একটি রেসিপি শেয়ার করব আশা করি সবারি পছন্দ হবে। নতুন আইটেম যারা পছন্দ করেন তাদের জন্য আজকের পোস্ট হাঁসের ডিমের কোপ্তাকারি রেসিপি তৈরি। আসুন না দেরি করে জেনে নেয়া যাক, হাঁসের ডিমের কোপ্তাকারি রেসিপি তৈরি বিস্তারিত আলোচনা করা হলো।

হাঁসের ডিমের কোপ্তাকারি রেসিপি তৈরি "উপস্থাপনা"

মেহমান আপ্যায়নে বা বিভিন্ন উৎসবে কোপ্তাকারি বেশ জনপ্রিয় একটি খাবার। পোলা কিংবা খিচুড়ির সাথে কোপ্তাকারি খেতে ভারী মজা। কোপ্তা নানাভাবে তৈরি করা যায়। যেমনঃ মাছের কোপ্তা, মাংসের কোপ্তা, ডিমের কোপ্তা ও সবজির কোপ্তা। মাছ-মাংসের কোপ্তার পাশাপাশি ডিমের কোপ্তা বেশ জনপ্রিয়। আজকে আপনাদের অনেক সহজে হাঁসের ডিমের কোপ্তাকারি তৈরি করার রেসিপি শেয়ার করব। ঘরে থাকা উপকরণ দিয়ে অনেক সহজে কিভাবে হাঁসের ডিমের কোপ্তাকারি করা যায় তা বিস্তারিত জানাবো। হাঁসের ডিমের কোপ্তাকারি রেসিপি জানতে শেষপর্যন্ত আমাদের সঙ্গে থাকুন।

উপকরণ | হাঁসের ডিমের কোপ্তাকারি রেসিপি তৈরি

কোপ্তার জন্যঃ গ্রেট করা হাঁসের ডিম ৪টি, ডিমের গোলা ১টি, গ্রেট করা আলু ২টি, গরম মসলার গুঁড়ো ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজকুচি ১ কাপ, ক্রাশ করা শুকনো লঙ্কা ৫-৬টি, লবণ স্বাদমতো, চিনি সামান্য পরিমাণ

গ্রেভির জন্যঃ তেল পরিমাণ মতো, পেঁয়াজকুচি ২-৩ কাপ, রসুন বাটা এক টেবিল চামচ, আদা বাটা এক টেবিল চামচ, টমেটো কুচি এক কাপ, কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, সামান্য পরিমাণ চিনি, ঘি ২ থেকে ৩ টেবিল চামচ, পানি পরিমাণ মতো।

রান্নার প্রণালীঃ কোপ্তার সব উপকরণ একসঙ্গে মেখে কোপ্তার আকারে গোল করে ডিমের গোলায় ডুবিয়ে ডুবো তেলে ভেজে নিন। এবার প্যানে গ্রেভির জন্য তেল, পিয়াজ কুচি, রসুন বাটা, আদা বাটা, টমেটো কুচি ও কাশ্মীরি শুকনো লঙ্কা দিয়ে ভেজে পানি দিয়ে কসিয়ে নিন । পানি ফুটে উঠলে ভেজে রাখা কোপ্তাগুলো দিয়ে কিছুক্ষণ রান্না করুন। কোপ্তার উপরে ঘি দিয়ে কিছুক্ষণ দমে রেখে পরিবেশন করুন।

হাঁসের ডিম নিয়ে কিছু প্রশ্ন উত্তর

প্রশ্নঃ হাঁসের ডিম দিয়ে কি রান্না করা যায় ?

উত্তরঃ হাঁসের ডিমের অতিরিক্ত-বৃহৎ কুসুম বেকড পণ্যগুলিকে উপরে উঠতে সাহায্য করে , তাই আপনি হঠাৎ করেই আপনার তৈরি করা সবচেয়ে ধনী কুকিজ, সবচেয়ে বড় কেক এবং ফ্লুফিস্ট প্যানকেকগুলি উপভোগ করবেন। আপনি যদি এটি উঠতে চান তবে হাঁসের ডিম সাহায্য করবে - এমনকি আপনার মেরিঙ্গুস এবং সফেলগুলি আরও স্থিতিশীল হবে!

প্রশ্নঃ হাঁসের ডিম মুরগির ডিম ভালো?

উত্তরঃ তবে আপনি তাদের পরিবেশন করেন, হাঁসের ডিম পুষ্টির একটি চমৎকার উৎস । তাদের গাঢ় হলুদ কুসুম নির্দেশ করে যে তারা মুরগির ডিমের চেয়ে বেশি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, বেশি ওমেগা -3 ফ্যাটি অ্যাসিড এবং 50% বেশি ভিটামিন এ ধারণ করে। হাঁসের ডিম মুরগির ডিমের চেয়ে বেশি প্রোটিন দেয়, এমনকি আকার বিবেচনা করে।

প্রশ্নঃ হাঁসের ডিম দেখতে কেমন?

উত্তরঃ অনেক হাঁসের ডিমে সাদা শাঁস থাকে, তবে এগুলি ফ্যাকাশে ধূসর, সবুজ, কালো এবং নীল রঙে আসে। কুসুম আকার এবং রঙ উভয় ক্ষেত্রেই আলাদা। যদিও মুরগির ডিমের কুসুম সাধারণত ফ্যাকাশে বা উজ্জ্বল হলুদ, হাঁসের ডিমের কুসুম সোনালি কমলার গভীর ছায়া।

প্রশ্নঃ হাঁসের ডিম ও মুরগির ডিম পার্থক্য

উত্তরঃ হাঁসের ডিম মুরগির ডিমের চেয়ে আকারে বড় । হাঁসের ডিমের সাদা অংশের তুলনায় মুরগির ডিমের সাদা অংশে পানির পরিমাণ বেশি থাকে (বেশি সর্দি)। হাঁসের ডিমের কুসুম বড় এবং মুরগির ডিমের তুলনায় কুসুম-সাদা-অনুপাত বেশি থাকে। মুরগির ডিমের চেয়ে হাঁসের ডিমের স্বাদ আরও সমৃদ্ধ, ক্রিমিয়ার এবং আরও "ডিমযুক্ত"।

প্রশ্নঃ একটি হাসের ডিমে কত গ্রাম প্রোটিন থাকে?

উত্তরঃ প্রতি ১০০ গ্রাম হাঁসের ডিমে প্রোটিনের পরিমাণ ১৩.৫ গ্রাম এবং ১০০ গ্রাম মুরগির ডিমে প্রোটিনের পরিমাণ ১৩.৩ গ্রাম ৷ হাঁসের ডিমের ফ্যাট থাকে ১৩.৭ গ্রাম, মুরগির ডিমে থাকে ১৩.৩ গ্রাম।

প্রশ্নঃ সিদ্ধ ডিম না অমলেট কোনটিতে প্রোটিন বেশি?

উত্তরঃ আসলে, আপনি যেভাবে একটি ডিম রান্না করুন না কেন, আপনার শরীর মূলত একই পরিমাণ পুষ্টি পাবে। ডিমের পুষ্টিগুণে যা পরিবর্তন হয় তা হল প্রস্তুতিতে যোগ করা উপাদান। উদাহরণস্বরূপ, একটি ডিমে 6 গ্রাম প্রোটিন থাকবে তা সেদ্ধ করা হোক বা অমলেটে তৈরি করা হোক ।

সর্বশেষ কথা - হাঁসের ডিমের কোপ্তাকারি রেসিপি তৈরি করুন

প্রিয় বন্ধুরা, আশা করি হাঁসের ডিমের কোপ্তাকারী রেসিপি তৈরি করতে আপনাদের আর কোন সমস্যায় পড়তে হবে না। আমাদের রেসিপি যদি সঠিকভাবে ফলো করেন তাহলে আপনি অবশ্যই উপকৃত হবেন। এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থেকে শেষ পর্যন্ত পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ।এরকম আরো নতুন নতুন রেসিপি পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন।

Next Post Previous Post