SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য

SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য - বর্তমান যুগ ডিজিটাল কম্পিউটারের যুগ। বর্তমান যুগের ছোঁয়াতে কম্পিউটার ও ল্যাপটপ এখন নিত্যদিনের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। কম্পিউটার এবং ল্যাপটপ এর হার্ডডিস্ক এর মাধ্যমে আমরা আমাদের বিভিন্ন ডাটা সেভ করে থাকি যেহেতু দ্রুত গতি ও সহজ ভাবে কাজ করার জন্য আমরা ল্যাপটপ ও কম্পিউটার ব্যবহার করে থাকি। অফিশিয়াল কাজ বা নিজের বাসায় ব্যাবহারের জন্য কম্পিউটার ব্যবহার করে থাকি। আর সেই কম্পিউটার যেন স্লো কাজ করে। 

যে কাজ করি সে কাজ করতে অনেক সময়ই ব্যয় হয়। তাহলে বিষয়টা অনেক খারাপ লাগে। আমাদের মধ্যে অনেকে আছে যারা কম্পিউটার ল্যাপটপ ব্যবহার করতে করতে অনেক স্লো কাজ করে। কিন্তু এর সঠিক সমাধান সম্পর্কে জানে না। আজকের পোস্টে আমি তাদের কম্পিউটার স্লো থেকে ফাস্ট করার জন্য যে পদ্ধতি অবলম্বন করতে হয় তা সম্পর্কে জানাবো। এর জন্য আপনাকে SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য জানতে হবে। তাহলে কথা না বাড়িয়ে জেনে নেয়া যাক, SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য সম্পর্কে।

SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য

যারা SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য জানতে চান। তারা পোস্টটি মনোযোগ সহকারে শেষ পর্যন্ত পড়ুন। তাহলে দেরি না করে SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য সম্পর্কে।

SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য উপস্থাপনাঃ

SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য উপস্থাপনাঃ অতীতকালে কম্পিউটার নিজস্ব ইন্টারনাল স্টোরেজ ছিল না। তখন ব্যবহার হতো ফ্লাপি ডিস্ক। সময়ের সাথে সাথে পরিবর্তন হয়েছে। এখন আমরা কম্পিউটার ইন্টার্নাল স্টোরে অনেক কিছু রাখতে পারি। তারপরেও আমরা কম্পিউটার ও ল্যাপটপের আলাদা কিছু হার্ডওয়ার ব্যবহার করে থাকি। যা কম্পিউটারের ও ল্যাপটপকে আরো উন্নত করে। তবে এই ডিস্কগুলো কয়েক ধরনের হয়ে থাকে। আপনি আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী ডিক্স বেছে নিতে পারেন। সলিড-টেস্ট ( SSD) ড্রাইভগুলি পুরোনো স্কুল হার্ড-ডিস্ক ড্রইগুলির চেয়ে দ্রুত গতি সম্পন্ন এবং সর্বজনীন।তবে সমস্ত ‍SSD একই নয়। এগুলি বিভিন্ন আকার এবং আকারে আসে, বিভিন্ন সর্বোচ্চ গতি থাকে এবং আপনি যেমন অনুমান করতে পারেন, বিভিন্ন দাম। তাহলে চলুন জেনে নেয়া যাক, SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য সম্পর্কে।

SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য 

SSD NVMe 

SSD NVMe M2 SATA হলোঃ প্রিয় পাঠক, আমাদের মধ্যে অনেকেই SSD (এস. এস. ডি) এর নাম শুনেছি বা জানি। কারন এটা বর্তমানে কম্পিউটারে খুব পপুলার একটা স্টোরেজ ডিভাইস। এর পুর্ণ রুপ হচ্ছে Solid-State Drive (সলিড- স্টেট ড্রাইভ)। SSD (এস. এস. ডি) এটি ব্যবহার ও খুব সহজ। 

আপনার  কম্পিউটার বা ল্যাপটপ যদি স্লো কাজ করে তাহলে আপনি খুব সহজেই দ্রুতগতিতে রুপান্তর করতে সাহায্য করবে SSD (এস. এস. ডি)। SSD (এস. এস. ডি) ডিভাইসে লাগানোর ফলে আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপ এ ভিডিও এডিট, উইন্ডোজ রান, সফটওয়্যার রান, গেম প্লে, ব্রাউজিং সব কিছু হবেই স্মুথ, ফ্রিল্যান্সিং ইত্যাদি অনলাইনে সকল কাজ করা যাবে অনেক তথ্য গতি সম্পন্ন ভাবে।

SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য
কম্পিউটার যদি গরম হয় SSD (এস. এস. ডি) লাগানোর পরে আর কম্পিউটার বা ল্যাপটপ সারাদিন ব্যবহারেও গরম হবে না। তবে এর স্টোরেজ স্পেস কম (১২০ জিবি)  থাকার কারনে এটি আউট ইফ স্টোরেজ হয়ে যায় খুব জলদি আর এইটার দাম ও তুলনামুলক বেশি হয়ে থাকে। SSD (এস. এস. ডি) বেশীরভাগ ব্যবহার করা হয় কম্পিউটার বা ল্যাপটপ এর হোস্টিং সার্ভার দ্রুত রান করানোর জন্য। আপনি চাইলে আপনি অনলাইনে কাজকে দ্রুতগতি করার জন্য আপনার ল্যাপটপেও কম্পিউটারে SSD (এস. এস. ডি) লাগাতে পারেন।

NVMe এর পুর্ণ রুপ হচ্ছে “Non-Volatile Memory Express". এটি এস এস ডি কে তার ফ্লাশ মেমোরি আরো স্মুথ ভাবে পরিচালনা করতে সহায়তা করে। এটি কে বিশেষ ভাবে SSD (এস. এস. ডি) কে আরো ইউজার ফ্রেন্ডলি করতে তৈরি করা হয়েছে। NVMe ড্রাইভ সাধারণত 3500 MB/s দিয়ে থাকে।

আশা করি সম্পর্কে এতক্ষণ SSD NVMe M2 SATA সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। এখন আমরা জানবো M2 SATA এবং mSATA সম্পর্কে।

M2 SATA এবং mSATA

M2 SATA এবং mSATA হলোঃ M2 SATA এবং mSATA এই দুইটা ড্রাইভ মূলত SSD (এস. এস. ডি) এর দুইটি ধরন। M2 SATA এবং mSATA আপনাকে আপনার কম্পিউটার ও ল্যাপটপে M2 SATA এবং mSATA থেকেও অতিরিক্ত স্পেস দিয়ে থাকে এবং কম্পিউটারকে অনেক দ্রুতগতি করে তোলে। যে  সকল ডিভাইস ছোট এবং চিকন এবং বোর্ড লেভেল স্টোরেজ সলুশন দরকার যেমন ল্যাপটপ ব্যবহারকারী অর্থাৎ ল্যাপটপ এর ড্রাইভের মধ্যে M2 SATA এবং mSATA বেশি সুনাম অর্জন করেছে ।

M2 SATA, mSATA আপডেট করে তৈরি হয়েছে, তার পরেও এখনো অনেক ডিভাইসে mSATA ব্যবহার করা হচ্ছে। এই দুইটার কাজ অনেকটা এক হলেও আপনি একটি কে দিয়ে আরেকটি বিনিময় করতে পারবেন না। যাদের কম্পিউটারের স্পেস বেশি প্রয়োজন তারা M2 SATA, mSATA ব্যবহার করবেন। কারণ এটির স্টোরেজ স্পেস বেশি হয়ে থাকে যেমন ১০০০gb+। এটি ব্যবহারের সময় কনফিউজড হওয়ার সম্ভবনা একটু বেশী।  

mSATA পুর্ণ রুপ হল miniSATA এর ফুল সাইজ SATA SSD এর থিনার ভার্শন। এটি একটি কম্পিউটার ইন্টারফেস যা হোস্ট বাস এডাপ্টার কে মেস স্টোরেজ ডিভাইসের সাথে কানেক্ট করতে সাহায্যে করে। mSATA সাধারণত ২০০৯ এ প্রকাশ করা হয় (সিরিয়াল আটা ইন্টারন্যাশনাল অর্গানাইজেশন) এর মাধ্যমে। mSATA পাওয়ার কনজাম্পশন তুলনা মুলক কম, স্টোরেজ বেশি এবং ফাস্ট কাজ করে। 
SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য

আপনি যদি মনে করেন আপনার প্রয়োজনে ডকুমেন্টগুলো নিরাপদে রাখবেন তাহলে mSATA ব্যবহার করবেন। এটি বেশির ভাগ ব্যবহার করা হয় প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট গুলোকে নিরাপদে রাখার জন্য। তবে mSATA এর PE cycle কম। ফলে M2 SATA এবং mSATA ব্যবহার করলে ডিভাইসের পাওয়ার ফল করলেও ডাটা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভবনা কম থাকে । এছাড়াও আপনার কাজের গতিকে অনেক দ্রুতগতি করার জন্য এটি নিজে থেকে সাহায্য করে।

সর্বশেষ কথা - SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য


প্রিয় পাঠক,  আজকের পোস্টটি যারা পড়েছেন তারা নিশ্চয়ই SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য জানতে পেরেছেন। আপনারা অনেকেই প্রশ্ন করেছিলেন SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর পার্থক্য কি? আশা করি আপনাদের সকল প্রশ্নের উত্তর আমরা উপরের পোস্টে জানাতে পেরেছি। আপনাদের প্রশ্নের উত্তর জানাতে পেরে আমরা খুবই আনন্দিত।

আপনাদের যদি SSD NVMe M2 SATA এবং mSATA এর সম্পর্কে আরো কোন প্রশ্ন থেকে থাকে তাহলে অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাবেন।

এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থেকে শেষ পর্যন্ত পোস্ট পড়ার জন্য আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ। এরকম আরো পোস্ট পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন।

Next Post Previous Post