OrdinaryITPostAd

কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো - কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয়

 

কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো ও কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয় - প্রিয় পাঠক এই পোস্টে আমরা জেনে নেব কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো সেই সম্পর্কে।কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো এটি নির্ভর করে আপনার ত্বক কোন ধরনের তার ওপর। আবার অনেকেই জানতে চাই কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয় সেই সম্পর্কে তাদের সুবিধার্থে এই পোস্টে আলোচনা করব কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয়, ব্রণের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো, অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো ইত্যাদি বিষয়গুলো সম্পর্কে। 

তাহলে চলুন আর দেরি না করে জেনে নিন কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো, কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয়, ব্রণের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো, অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো ইত্যাদি বিষয়গুলো সম্পর্কে।  

পোস্ট সূচিপত্রঃ কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো - কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয়

কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো

আমরা এখন জেনে নেব কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো আপনার ত্বকের জন্য সেই সম্পর্কে। কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো এটি আসলে নির্ভর করে আপনার ত্বক কোন ধরনের তার ওপর। কারণ প্রত্যেকটি মানুষের ত্বক ভিন্ন ভিন্ন। কারো ত্বক তৈলাক্ত হয়, আবার কারো ত্বক স্বাভাবিক শুষ্ক হয়, আবার কারো মিশ্র ত্বক থাকে। আপনার ত্বক যদি তৈলাক্ত হয় তার জন্য যে ফেসিয়াল প্রয়োজন  শুষ্ক বা মিশ্র ত্বকের জন্য সেটার মাধ্যমে খুব একটা উপকার না পাওয়াটাই স্বাভাবিক। আবার আপনার বয়স কেমন তার উপরেও নির্ভর করে কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো আপনার ত্বকের জন্য। তাই কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো এটি আসলে বলা মুশকিল। তবে কোন ধরনের ত্বকের জন্য কোন ফেসিয়াল উপযোগী তা নিচে আপনাদের সাথে শেয়ার করা হলো। 

অ্যালোভেরা ফেসিয়ালঃ  

অতিরিক্ত শুষ্ক, রাফ বা সেনসেটিভ ত্বকের জন্য অ্যালোভেরা ফেসিয়াল অনেক উপকারী। এটি ব্রণের সমস্যা দূর করে, সানবার্ন ভালো করে, সেই সঙ্গে বয়সের  ছাপও লুকিয়ে ফেলে। ত্বকের পরিচর্যার জন্যও অ্যালোভেরা ফেসিয়াল বেশ কার্যকর। 

ফ্রুট ফেসিয়ালঃ 

বিভিন্ন ধরনের ফলের সংমিশ্রণে তৈরি ফেসিয়াল আমাদের ত্বকের জন্য খুবই উপকারী যাকে আমরা সাধারণত ফ্রুট ফেসিয়াল বলে থাকি। এই ফেসিয়ালে যে মিক্সড ফ্রুট ক্রিম ব্যবহার করা হয় তা সব ধরনের ত্বকের জন্য উপযোগী হিসেবে বলা যায়। ফ্রুট ফেসিয়াল সাধারণত ত্বকের গভীর থেকে ময়লা পরিষ্কার করে এবং ত্বক টান টান রাখতে সাহায্য করে। একমাত্র ফ্রুট ফেসিয়ালই যেকোনো ধরনের ত্বকের জন্য উপযোগী। 

গ্লোল্ড ফেসিয়ালঃ 

গোল্ড ফেসিয়াল এর নাম আমরা সকলেই শুনেছি। মূলত মধ্য বয়সী নারীদের জন্য এই ফেসিয়াল বেশ কার্যকর।সব ধরনের ত্বকের জন্যই উপকারী, শুধু সেনসিটিভ বা স্পর্শকাতর ত্বকে এই ফেসিয়াল করা যাবে না। এশিয়া মহাদেশের দেশগুলোতে নারীদের ত্বকের জন্য এই ফেসিয়াল উপযোগী। এই ফেসিয়াল করলে একটু সোনালি আভা আসে মুখে। আবার বিয়ের কনের জন্য এই ফেসিয়াল খুবই উপযোগী কারণ এটা ত্বকে সুন্দর একটা সোনালি আভা এনে দেয়। আর এই ফেসিয়ালে ত্বকে উজ্জ্বল ভাব আনে।      

ডিপ ক্লিন ফেসিয়ালঃ 

ডিপ ক্লিন ফেসিয়াল মূলত তৈলাক্ত ত্বকের জন্য করা হয়। অনেকের ত্বক প্রচুর পরিমাণে তৈলাক্ত হয় এর ফলে ব্রণের মতো সমস্যা দেখা যায়। ডিপ ক্লিন ফেসিয়ালে ত্বক গভীর থেকে পরিষ্কার তো হবেই, একই সাথে ডিটক্সিফায়েড হবে। লোমকূপগুলো গভীর থেকে পরিষ্কার হবে, ফলে ত্বকে ব্রণ বা ব্ল্যাক হেডসের সমস্যা কমে আসবে। এ ফেসিয়ালগুলো ত্বকে আর্দ্রতা জোগাবে ঠিকই, শুষ্ক না করে।

আরো পড়ুনঃ সকালে ব্যায়াম করার ১০ উপকারিতা জেনে নিন। 

পার্ল ফেসিয়ালঃ 

পার্ল ফেসিয়াল সব ধরনের ত্বকের জন্য প্রযোজ্য, তবে স্পর্শকাতর ত্বকে এই  ফেসিয়াল বেশ কার্যকর। একটু বয়স বেশি হলে পার্ল ফেসিয়াল করা উচিত। পার্ল ফেসিয়াল করার পর ত্বকে অফহোয়াইট একটা আভা আসে এবং অনেক দিন দীর্ঘস্থায়ী হয়।

অ্যান্টি-রিংকেল ফেসিয়াল ঃ 

যাদের ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক, যাদের রিঙ্কেল পরার সম্ভাবনা খুব বেশি তারা এই ফেসিয়াল করবেন। বয়স বাড়ার সাথে সাথে চামড়া কুঁচকে যাওয়া, ভাঁজ পড়া বা ঝুলে যাওয়া ইত্যাদি নানা সমস্যা তৈরি হয়। অ্যান্টি-রিংকেল ফেসিয়াল এসব সমস্যা সমাধান করে আপনার ত্বকে মসৃণতা ফিরিয়ে আনবে।

স্কিন টাইটেনিং ফেসিয়ালঃ 

ওজন বাড়লে, গর্ভাবস্থা বা বয়সজনিত কারণে আমাদের মুখের চামড়ার  স্থিতিস্থাপকতা নষ্ট হয়ে ত্বক ঝুলে পড়ার সম্ভাবনা থাকে। বয়স বেড়ে যাওয়ার  কারণে ত্বকের টানটান ভাব কমে যায়। এ ক্ষেত্রে স্কিন টাইটেনিং ফেসিয়াল খুবই উপকারী।

অ্যারোমা ফেসিয়ালঃ 

অ্যারোমা ফেসিয়াল বিয়ের কনেদের জন্য কার্যকরী। অর্থাৎ যাঁরা কিছু দিন পর বিয়ের কনে সাজতে যাচ্ছেন তাঁদের জন্য এই ফেসিয়াল উপযোগী এবং এই ফেসিয়াল সব ধরনের ত্বকের জন্যই উপযোগী।

পিম্পেল ফেসিয়ালঃ

এই ফেসিয়াল তৈলাক্ত ত্বকের এবং ব্রনে আক্রান্তদের জন্য উপকারী। বড় ছোট সবাই এটা করতে পারেন। নিয়মিত মাসে দুবার এই ফেসিয়াল করলে পিম্পেল আস্তে আস্তে কমে আসবে।

উপরে আমরা বিভিন্ন ধরনের ফেসিয়াল নিয়ে আলোচনা করলাম। এখন যদি প্রশ্ন করা হয় কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো তাহলে এর উত্তর দেওয়া কিছুটা মুশকিল। কারণ আপনারা উপরে দেখলেন বিভিন্ন ধরনের ফেসিয়াল বিভিন্ন ত্বকের জন্য ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে। তাই আপনার ত্বকের জন্য যেই ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো তা অন্য কারো জন্য ভালো নাও হতে পারে।তাই আপনার ত্বকের জন্য কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো তা জানার জন্য কোন বিউটিশিয়ান বা ত্বকবিশেষজ্ঞ এর পরামর্শ নিতে পারেন।  

কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয়

আমরা এখন জেনে নেব কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয় আপনার ত্বক সেই সম্পর্কে। অনেকের মনেই প্রশ্ন থাকে কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয়। আসলে ত্বকের জন্য সব ফেসিয়ালেই কিছু না কিছু পরিমাণ ত্বক ফর্সা হয়। তবে গোল্ড ফেসিয়াল আপনার ত্বক কে  স্থায়ীভাবে উজ্জ্বল এবং ফর্সা করে তুলে।আসলে এশিয়া অঞ্চলে মহিলা পুরুষ সবার ত্বকের রংয়ের ধরন অনুযায়ী গোল্ড ফেসিয়াল বিশেষ উপযোগী। গোল্ড ফেসিয়াল করলে ত্বক কিছুটা গোল্ডেন আভা পাই এর ফলে ত্বক দেখতে অনেক ফর্সা দেখায়।এছাড়াও পার্ল ফেসিয়াল করতে পারেন। পার্ল ফেসিয়াল করার পর ত্বকে অফহোয়াইট একটা আভা আসে এবং অনেক দিন দীর্ঘস্থায়ী হয়। আশা করি বুঝতে পেরেছেন কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয়।  

ব্রণের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো

আমরা এখন জেনে নেব ব্রণের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো সেই সম্পর্কে। আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন তরুণ বয়সে ব্রণের সমস্যায় জর্জরিত। আবার অনেকের ত্বক তৈলাক্ত হয়ে থাকে এর ফলে তাদের ত্বকে ব্রণের মতো সমস্যা দেখা যায়। তো চলুন জেনে নেই ব্রণের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো।

ব্রণের জন্য এমন ফেসিয়াল বেছে নিতে হবে তা ত্বকের গভীর থেকে পরিষ্কার করবে। আপনাকে সবসময় ট্রিটমেন্টে থাকতে হবে এক্সফোলিয়েটিং, টোনিং, মাস্কিং আর প্রোটেকশন এর। ত্বকের ব্রণের জন্য ডিপ ক্লিন, পার্ল বা সিলভার ফেসিয়াল কার্যকর কারণ এটি ত্বককে ভেতর থেকে পরিষ্কার করে এবং ডিটক্সিফায়েড করে। এই ধরনের ফেসিয়াল করলে লোমকূপগুলো গভীর থেকে পরিষ্কার হবে, ফলে ত্বকে ব্রণ বা ব্ল্যাক হেডসের সমস্যা কমে আসবে। এই ধরনের ফেসিয়ালগুলো ত্বকে আর্দ্রতা জোগাবে ঠিকই, শুষ্ক না করে। আশা করি বুঝতে পেরেছেন ব্রণের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো হবে আপনার ত্বকের জন্য। 

অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো

আমরা এখন জেনে নেব অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো সেই সম্পর্কে। আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন যাদের ত্বক সবসময়ই অয়েলি হয়ে থাকে। অয়েলি স্কিনের জন্য তারা সবসময়ই ব্রন এর মতো সমস্যায় ভুগে থাকেন। এছাড়াও অনেক নারী আছেন যাদের অয়েলি স্কিনের জন্য ঠিকমতো মেকআপ করতে সমস্যা হয়। তাই অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো তা বাছাই করতে হবে ভেবে চিন্তে। তাছাড়া ব্ল্যাকহেডস বা ব্রন এর মতো সমস্যা থেকেই যাবে। তাহলে চলুন জেনে নেই অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো।

আরো পড়ুনঃ মোটা হওয়ার উপায় এবং ব্যায়াম গুলো সম্পর্কে জানুন। 

অয়েলি স্কিনের জন্য আপনাকে এমন একটি ফেসিয়াল বেছে নিতে হবে যা আপনার স্কিন কে গভীর থেকে পরিষ্কার করবে।অয়েলি  স্কিন কে গভীর থেকে পরিষ্কার করার জন্য ডিপ ক্লিন ফেসিয়াল টি কার্যকর হবে। এই ফেসিয়ালটি করলে আপনার স্কিন গভীর থেকে পরিষ্কার হবে এবং লোমকূপগুলো ত্বকের গভীর থেকে পরিষ্কার হবে। এর ফলে অয়েলি স্কিনের সমস্যা অনেকটাই কমে আসবে। আশা করি বুঝতে পেরেছেন অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো হবে। 

শেষ কথাঃ | কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো | কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয়

প্রিয় পাঠক, আমরা এই পোষ্টে একদম শেষ দিকে চলে এসেছি। আমাদের মধ্যে অনেকেই ছিলেন যারা  কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো, কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয়, কোন ধরনের ত্বকের জন্য কোন ফেসিয়াল কার্যকর সেটি সম্পর্কে খুব বেশি অবগত ছিলেন না তাদের সুবিধার্থে এই পোস্টে বিস্তারিত আলোচনা করেছি কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো, কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয় , ব্রণের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো, অয়েলি স্কিনের জন্য কোন ফেসিয়াল ভালো ইত্যাদি বিষয়গুলো সম্পর্কে।  

আরো পড়ুনঃ কিভাবে ফর্সা হওয়া যায় তার ৯ উপায় জেনে নিন। 

পোষ্ট টি আপনার কাছে ইনফরমেটিভ এবং উপকারী মনে হলে শেয়ার করুন আপনার আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবের সাথে যেন তারাও জেনে নিতে পারেন তাদের ত্বকের জন্য কোন ফেসিয়াল সবচেয়ে ভালো এবং কোন ফেসিয়াল করে ফর্সা হয় ইত্যাদি বিষয়গুলো সম্পর্কে।১৬৮২১  

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন