OrdinaryITPostAd

ব্যাকলিংক কি? ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করে?

ব্যাকলিংক কি? ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করে - প্রিয় পাঠক, আপনি কি ব্যাকলিংক কি, ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করে এই প্রশ্নের উত্তর জানতে চান। আজকে আমি আপনার সুবিরার্থে ব্যাকলিংক কি? ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করে? এ সকল বিষয় নিয়ে আলোচনা করব। ব্যাকলিংক হল একটি ওয়েবসাইটের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি করে। একটি নতুন ওয়েবসাইটের ভিজিটর বাড়ানোর সবচাইতে ভালো একটি উপায় হল ব্যাকলিংক। আমাদের মধ্যে অনেকেই আছে যারা নতুন ওয়েবসাইট কিনে নিয়ে অথবা তৈরি করে অনেক বিভ্রান্তিতে পড়েন। ভিজিটর অনেক কম আসে ইনকাম হয় না। এই নিয়ে অনেক চিন্তায় পড়ে যান। অনেকেই আছে যারা ব্যাকলিংক কি, ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করতে হয় এ সকল তথ্য সম্পর্কে জানেনা। আজকের পোস্টে আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। তাহলে কথা না বাড়িয়ে জেনে নেয়া যাক, ব্যাকলিংক কি? ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করে?

ব্যাকলিংক কি? ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করে?

আজকের পোস্টে যারা ব্যাকলিংক কি? ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করে? এ সকল প্রশ্নের উত্তর সম্পর্কে জানতে চান। তারা আজকের পোস্টটি শেষ পর্যন্ত মনোযোগ সহকারে পড়ুন। তাহলে আপনি  ব্যাকলিংক কি, প্রোফাইল ব্যাকলিংক কি, ওয়েব 2.0 ব্যাকলিংক কি, প্রাথমিক লিংক করার কৌশল, মাধ্যমিক লিংক করার কৌশল, প্রফেশনাল বা এডভান্স লিংক করার কৌশল জানতে পারবেন।

ব্যাকলিংক কি?

ব্যাকলিংক কিঃ ব্যাকলিংক হল এমন এক ধরনের টেকনিক যা আপনার ওয়েবসাইটের রেংকিং বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে থাকে। আপনি যদি একজন নতুন ব্লগার হন। আপনার যদি ওয়েবসাইট থাকে। ওয়েবসাইটের র‍্যাংকিং ফ্যাক্টর বাড়ানোর জন্য আপনি ব্যাকলিংক করতে পারেন। আপনি যদি সঠিকভাবে ওয়েবসাইটে ব্যাক্লিং এর মাধ্যমে ব্যাংকিং করতে পারেন তাহলে আপনার ওয়েবসাইটটি অফলাইন এসইও করার উপযোগী হয়ে উঠবে।

প্রোফাইল ব্যাকলিংক কি?

প্রোফাইল ব্যাকলিংক কিঃ প্রোফাইল ব্যাক লিংক হল নতুন ওয়েবসাইট এর জন্য লিংক গুলোর মধ্যে একটি। এটি অনলাইনে ইন্টারনেটের উচ্চস্থানের সাইট গুলোর একটি লিংক। প্রোফাইল ব্যাকলিংক সাধারণত SEO করার জন্য বৈচিত্র আনতে আপনার তৈরি করা লিংকগুলোর ধরন। যা আপনার ব্যাকলিংক প্রোফাইলে বৈচিত্র আনার জন্য একটি বড় উৎস।

ওয়েব 2.0 ব্যাকলিংক কি?

ওয়েব 2.0 ব্যাকলিংক কিঃ ওয়েব 2.0 ব্যাকলিংক হল নতুন কোন ফ্রি ওয়েবসাইটকে আপনার মেইন ব্লগে সাইটে যে লিংক নেওয়া হয় সেটাকে web 2.0 backlink বলে। ফ্রিতে হলেও ওয়েব 2 প্লাটফর্ম গুলো সীমিত আকারের ডিজাইন, অপটিমাইজেশন ও কাস্টমাইজ করতে পারেন।

প্রাথমিক লিংক তৈরির কৌশল-ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করবেন

আপনি যদি একজন ব্লগার হন তাহলে আপনি অবশ্যই এই কথা চিন্তা করে থাকবেন। কিভাবে ব্লগের জন্য ব্যাকলিংক পাওয়া যায়। যেভাবে ব্লগের জন্য ব্যাকলিংক পাবেন, তার জন্য আপনাকে জানতে হবে প্রাথমিক লিংক তৈরির কৌশল সম্পর্কে। তাহলে চলুন জেনে নেই, প্রাথমিক লিংক তৈরির কৌশল সম্পর্কে।

রাউন্ড্যাপ পোস্ট লেখাঃ যখন আপনার একটি পোস্ট সুন্দর ও তথ্য বহুল হবে। তখন অন্য ব্লগার তাদের পোস্টটি আপনার পোস্টে লিংক শেয়ার করবে। ফলে আপনার পোস্টটি বেশি মানুষের কাছে পৌঁছাবে। এটি একটি প্রাথমিক লিংক তৈরির কৌশল যেভাবে ব্লকের জন্য ব্যাকলিংক পাবেন। আর যদি আপনার পোস্ট ভালো মানের তথ্যবহুল সম্পর্কে না হয় তাহলে ভিজিটর আসবে কিন্তু আপনার পোস্টটি সঠিক তথ্যসম্পন্ন না হওয়ায় পাঠকরা বিরক্ত বোধ করবেন। সেজন্য অবশ্যই আপনাকে মানসম্মত সুন্দর ও তথ্যবহুল পোস্ট লিখতে হবে।

আলাদা বিষয়ে আলাদা পোস্ট লেখাঃ প্রত্যেকটি বিষয়ে আলাদা আলাদা পোস্ট দেয়া হতে পারে। আরেকটি লিংক তৈরির কৌশলে ব্যাকলিংক তৈরি করতে পারবেন। মনে রাখবেন কখনো কারো পোস্ট কপি করে লিখবেন না। সব সময় চেষ্টা করবেন নতুন ভাবে নিজের বুদ্ধি প্রয়োগ করে লেখার। প্রত্যেকে তার মেধা দিয়ে পোস্ট লিখে থাকে। আপনি আপনার মেধা খাটিয়ে একটি ভালো মানের তথ্যবহুল পোস্ট লিখতে পারেন। যাতে করে আপনার পাঠকের পড়তে ভালো লাগে।

পরিসংখ্যান কম্পাইল করাঃ আপনি যেকোন বিষয়ে লেখালেখি করার আগে সেই বিষয়ে সম্পর্কে প্রয়োজনে পরিসংখ্যান দেখে নিতে হবে। যেটা কিনা লিংক তৈরির কৌশলের মধ্যে অন্যতম ব্যাকলিংক তৈরি করতে পারবেন।

ইনফগ্রাফ তৈরিঃ একটি বিষয়ে লেখার আগে আপনাকে সে বিষয় সম্পর্কে তথ্যগুলো যদি গ্রাফের সাহায্যে প্রকাশ করা হয় তাহলে পোস্টটি বেশি রিচ হবে। এর ফলে আপনি আপনার ওয়েবসাইটে অনেক বেশি ট্রাফিক পেতে পারেন।

সাময়িক বিষয় সম্পর্কে লেখাঃ যেহেতু এই পোষ্টের আপনাদের যেভাবে ব্লগের জন্য ব্যাকলিংক পাবেন। সে সম্পর্কে বলেছি, তাই এটাও জেনে রাখা ভালো যে আপনার যদি সাময়িক বিষয় সম্পর্কে লেখেন সেটা বেশি বেশি মানুষ করবে পড়বে। আপনি যদি বর্তমানে কি বিষয়ে পোস্ট লেখা যায় এবং ভবিষ্যতের কি কি বিষয়ে পোস্ট লেখা যায় যেটি আসতে চলেছে এরকম কিছু বিষয়ে গুগলে কি আর রিসার্চ করলে আপনি খুব সহজে জানতে পারবেন। এবং সে সকল সাময়িক বিষয় সম্পর্কে আপনি যদি পোস্ট লিখে থাকেন তাহলে আপনার পোস্টটি অনেক ভিজিটর পড়তে পারবে। এতে করে আপনার ওয়েবসাইটের পেজে র‍্যাংকিং বাড়বে। ওয়েব সাইটে ডোমেইন অথরিটি অনেক বৃদ্ধি পাবে।

আশা করি, প্রাথমিক লিংক তৈরি কৌশল এবং যেভাবে ব্লগের জন্য ব্যাংক লিঙ্ক করবেন এ সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। এখন আমরা জানবো মাধ্যমিক লিংক তৈরি কৌশল এবং ব্যাক লিংক কিভাবে তৈরি করে।

মাধ্যমিক লিংক তৈরি কৌশল এবং ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করে?

মাধ্যমিক লিংক তৈরি কৌশল এবং যেভাবে প্রয়োগের জন্য ব্যাকলিংক পাবেনঃ আপনি যদি মোটামুটি ব্যাংকলিংক সম্পর্কে বুঝে থাকেন এবং ব্যাকলিঙ্ক করতে পারেন। তাহলে এই মাধ্যমিক  ব্যাকলিংক তৈরির কৌশল এবং যেভাবে ব্যাকলিংক পাবেন এটি আপনার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যদি ভালো পোস্ট লিখে থাকেন এবং সে পোস্টের জন্য ব্যাকলিংক তৈরি করে ভিজিটর বাড়াতে পারবেন। আরো ভালোভাবে বুঝার জন্য নিচে আপনাদের মাধ্যমিক লিঙ্ক তৈরি করা কৌশলে ও ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করতে পারবেন।

লিক এক্সচেঞ্জ করাঃ আপনি যদি একটি ভাল পোস্ট লিখে থাকেন এবং সেই পোস্টটি অন্য কোন ব্লগারের পোস্ট শেয়ার করে আরেকটি কৌশল যেভাবে ব্লগারের জন্য ব্যাকলিংক পাবেন। এর ফলে আপনি আপনার ব্লগে বেশি বেশি ট্রাফিক বাড়াতে পারবেন। একটা কথা সব সময় মনে রাখতে হবে ভালো ব্যাকলিংক পাওয়ার আগে আপনার ভালো একটি পোস্ট লিখতে হবে। একটি ভালো পোস্ট ভালো মানের হলে অবশ্যই লিঙ্ক এক্সচেঞ্জ করতে পারবেন। অন্য ওয়েবসাইটে মালিকও আপনাকে উৎসাহিত করবে ব্যাকলিঙ্ক পাওয়ার জন্য।

গুগল নোটিফিকেশন অন রাখাঃ আপনি যদি জেনে না থাকেন গুগল নোটিফিকেশন অন রাখা কতটা গুরুত্বপূর্ণ একটি ওয়েবসাইট ব্লগারের জন্য। তাহলে অবশ্যই আপনাকে google নোটিফিকেশন অন সম্পর্কে ধারণা রাখতে হবে। নোটিফিকেশন হলো আপনার ওয়েবসাইটের ব্যাকলিংক তৈরি করতে সাহায্য করে থাকে। আপনার ব্লগে যদি গুগল নোটিফিকেশন অন রাখা হয়। তাহলে লিংক তৈরির জন্য অন্যতম একটি কৌশল হতে পারে। যার সাথে আপনি ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করতে পারবেন।

ইনফেরিওর কনটেন্ট থেকে লিংক নেওয়াঃ আপনার ব্লগিং পোস্টে আপনি যদি ভালো মানের কন্টেন্ট তৈরি করতে পারেন তাহলে অনেক ভালো একটি ব্যাকলিংক তৈরি করতে পারবেন। তার জন্য আপনার ইনফেরিওর কনটেন্ট থেকে লিংক নেওয়া হতে পারে আপনার ব্যাংক লিংক তৈরির একটি কৌশল। যেভাবে আপনার ব্লগে বেশি মানুষ হবে। ফলে আপনার ব্লক থেকে বেশি বেশি আয় হবে।

গেস্ট ব্লগিংঃ গেস্ট ব্লগিং বলতে সাধারণত অন্যের ওয়েবসাইটে জন্য কনটেন্ট লেখা বোঝানো হয়। যদি আপনি অন্য কারো ওয়েবসাইটে কন্টেন্ট লিখে থাকেন এর মাধ্যমে আপনার ব্লগের নিজের সাইট শেয়ার করে সুযোগ থাকে।

ভালো কনটেন্ট বাছাইঃ আপনি যদি আপনার ব্লগে জন্য লেখালেখি করেন তাহলে অবশ্যই আপনার ভালো কনটেন্ট বাছাই করে লিখতে হবে। তাহলে আপনার ওয়েবসাইটে অনেকের পাওয়া যাবে। মনে রাখবেন ভালো কনটেন্ট ট্রাফিক বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। আপনি যদি ভালো কনটেন্ট বাছাই করে লিখতে না পারেন। তাহলে আপনার লেখালেখি কোন সার্থকতা আসবে না। এতে করে আপনি অনেক বিভ্রান্তির মধ্যে পড়তে পারেন। তাই আমাদের উচিত ভাল কনটেন্ট বাছাই করে লেখালেখি করা।

হারিয়ে যাওয়া লিংক ফিরে পাওয়াঃ হারিয়ে যাওয়া লিংক এটি একটিও ব্যাকলিংক তৈরির কৌশল ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করতে পারবেন কারণ হারিয়ে যাওয়া পোস্ট বা লিংক খুঁজে পেয়ে আপনি সেটি থেকে আয় করতে পারবেন।

এডভান্স লিংক তৈরির কৌশল- ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করবেন

এডভান্স লিংক তৈরির কৌশল, যেভাবে ব্লগের জন্য ব্যাকলিঙ্ক পাবেনঃ আপনি যদি প্রাথমিক ব্যাকলিংক তৈরি সম্পর্কে জানেন এবং মাধ্যমিক ব্যাকলিংক তৈরির কৌশল সম্পর্কে জেনে থাকেন তাহলে আপনার জন্য এডভান্স লিঙ্ক তৈরি কৌশল। সব সময় একটি কথা মনে রাখবেন কখনোই একবারে হাই লেভেলে যাওয়ার চেষ্টা করবেন না। আপনি যদি মনোযোগ দিয়ে ধীরে সুস্থে কাজ করেন তাহলে আপনি অবশ্যই একদিন ভালো স্থানে পৌঁছাতে পারবেন। নিচে এডভান্স লিংক তৈরি কৌশল এবং ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করতে পারবেন জানানো হলো।

হার ব্যাকলিংক বিল্ডিংঃ হার হল ব্যাকলিঙ্কের এমন একটি কৌশল, যার অনলাইন সার্ভিস যা ব্লগার ইনফরমেশন এর মধ্যে লিংক তৈরি করে। অ্যাডভান্স ব্যাকলিংক তৈরির কৌশল এভাবে ব্লগের জন্য প্যাকিং পাবেন।

প্রত্যেক প্রশ্নের সঠিক উত্তর দেওয়াঃ যখন আপনি আপনার ব্লকটি পাবলিশ করবেন তারপর রিডারদের সঠিক উত্তর দিলে বেশি বেশি ব্যাকলিংক পাবেন। এটি একটি লিংক তৈরির কৌশল যেভাবে ব্যাক লিঙ্ক পাবেন। আর আপনি যত বেশি ব্যাকলিংক পাবেন তত বেশি মানুষ আপনার সাইটটি ভিজিট করবে।

নিজের হাতে ইমেইল লেখাঃ আপনি যখন একটি ব্লগ সম্পর্কে বিষয় কাউকে ইমেইল করবেন। তখন অবশ্যই চেষ্টা করবেন নিজের হাতে সুন্দর ভাষায় ইমেইল করতে। আপনি তাদেরকে ইমেইল করবেন তারা অবশ্যই একসাথে অনেক ইমেল গ্রহণ করবেন। তাই আপনি সঠিক টেমপ্লেট যোগ করে ইমেইল পাঠাতে ব্যর্থ হন কখনই ব্যাংক লিঙ্ক পাবেন না। জন্য আপনাকে সঠিক ভাবে নিজেই সুন্দরভাবে ইমেইল পাঠাতে হবে।

ফলোআপ ইমেইলঃ যখন আপনার রিসিভার ইমেইল এর রিপ্লাই না করে, সেক্ষেত্রে আপনি তাদেরকে একটা ফলো ইমেল দিতে পারেন। আপনি যদি সঠিকভাবে লিংক তৈরি করতে পারেন তাতে আপনার ব্লগে ট্রাফিক অনেক বেড়ে যাবে। এবং ভালো আয় করতে পারবেন এভাবে আপনার ব্লগের জন্য ব্যাকলিংক পেতে পারেন।

স্কাই স্কাপার টেকনিকঃ এই টেকনিকে তিনটি ভাগ বিভক্ত প্রথমে একটি ভালো কনটেন্ট খুঁজে বের করতে হবে। এটিকে নিয়ে বিস্তারিত পরে তারপর লেখা শুরু করতে হবে। এতে করে আপনার লেখার মান বাড়াবে। আপনি আপনার ব্লগে বেশি বেশি ট্রাফিক পাবেন এভাবে যে কেউ তার ব্লগের জন্য ব্যাটিং পাবে।

সর্বশেষ কথা - ব্যাকলিংক কি? ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করে?

প্রিয় পাঠক, আজকের পোস্টটি যারা পড়েছেন তারা নিশ্চয়ই জানতে পেরেছেন ব্যাকলিংক কি? ব্যাকলিংক কিভাবে তৈরি করে? আজকের পোস্টটি পড়ে আপনারা নিশ্চয়ই ব্যাকলিংক তৈরি সম্পর্কে জানতে পেরেছেন এবং অবশ্যই আপনার ওয়েবসাইটে ব্যাকলিংক তৈরি করতে পারবেন। আজকের পোস্ট পড়ে আপনাদের ব্যাকলিংক সম্পর্কে কোন প্রশ্ন থেকে থাকলে। অবশ্যই আমাদের কমেন্ট বক্সের মাধ্যমে জানাবেন।

এতক্ষণ আমাদের সঙ্গে থেকে শেষ পর্যন্ত পোস্ট পড়ার জন্য আপনাদের অসংখ্য ধন্যবাদ। এরকম আরো পোস্ট পেতে আমাদের ওয়েবসাইটটি ফলো করুন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url